1. clients@www.dainikbangladesh71sangbad.com : DainikBangladesh71Sangbad :
  2. frilixgroup@gmail.com : Frilix Group : Frilix Group
  3. kaziaslam1990@gmail.com : Kazi Aslam : Kazi Aslam
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০২:২৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
জরুরী নিয়োগ চলছে জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ দেশের প্রতিটি বিভাগীয় প্রতিনিধি, জেলা,উপজেলা, স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি বা সাংবাদিক নিয়োগ চলছে। সাংবাদিকতা সবার স্বপ্ন, আর সেই স্বপ্ন পূরণ করতে আপনাদেরকে সুযোগ করে দিচ্ছে দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ দেখিয়ে দিন সাহসীকতার পরিচয়, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সাংবাদিকতার বিকল্প নেই। আপনার আশপাশের ঘটনা তুলে দরুন সবার সামনে।হয়ে উঠুন আপনিও সৎ, সাহসী সাংবাদিক। দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ পোর্টাল নিয়োগ এর নিদের্শনাবলী: ১/জীবন বৃত্তান্ত ( cv) ২/জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। ৩/সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি ১কপি। ৪/সর্বনিম্ন এইচএসসি পাস/সমমান পাস হতে হবে। ৫/বিভিন্ন নেশা মুক্ত হতে হবে। ৬/নতুনদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ৭/স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। ৮/স্মার্টফোন ব্যবহারে পারদর্শী হতে হবে। ৯/দ্রুত মোবাইলে টাইপ করার দক্ষতা থাকতে হবে। ১০/বিভিন্ন স্থানে ভ্রমন এর মানসিকতা থাকতে হবে। ১১/সৎ ও পরিশ্রমী হতে হবে। ১২/অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। ১৩/নারী-পুরুষ আবেদন করতে পারবেন। ১৪/রক্তের গ্রুপ যুক্ত করবেন। ১৫/স্থানীয় দের সাথে পরিচয় লাভ করতে হবে। ১৬/উপস্থিত বুদ্ধি, সঠিক বাংলা বানান, ও শুদ্ধ বাংলায় পারদর্শী হতে হবে। ১৭/ পরিশ্রমী হতে হবে যোগাযোগের জন্য ইনবক্সে মেসেজ করুন cv abuyousufm52@gmail.com দৈনিক বাংলাদেশ ৭১সংবাদ মোবাইল নং(01715038718)

কালীগঞ্জ অগ্রণী ব্যাংকের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহন,গ্রাহক হয়রানিরসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ

Reporter Name
  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৪৫১ বার পড়া হয়েছে

মোঃ আনোয়ার হোসেন, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি-

অগ্রণী ব্যাংক কালিগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাতের বিরুদ্ধে ঋন দেওয়ার কথা বলে ঘুষ গ্রহন, গ্রাহক হয়রানিসহ তার চেম্বারকে বিএনপি’র পার্টি অফিস হিসেবে ব্যবহার করার মত গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এসবই যেন নিয়ম হয়ে দাড়িয়েছে অগ্রনী ব্যাংক কালিগঞ্জ শাখায়। ফলে এখানকার গ্রাহক, ব্যাংক স্টাফ সকলেই ক্ষুদ্ধ । তবে সবকিছুকেই থোরাই কেয়ার করেন অগ্রনী ব্যাংকের এ শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ম্যানেজার নাজমুস সাদাত। নাজমুস সাদাত চলতি বছরের ২২ জুন কালিগঞ্জ শাখায় ব্যবস্থাপক হিসেবে যোগ দেন। এরপর থেকেই ম্যানেজারের এহেন কর্মকান্ডের ফলে গ্রাহক হারাতে বসেছে ব্যাংকের এ শাখাটি।
জানা গেছে, যোগদানের পরপরই তিনি বিধিবহির্ভূত ভাবে একাধিক গ্রাহককে তিনি দুইটা করে শস্য ঋন দেন। মনোহরপুর গ্রামের মোঃ মনিরুল ইসলাম এবং ঈশ্বরবা গ্রামের আইনাল হোসেন তাদের পূর্বের শস্য ঋন পরিশোধ না করলেও তাদেরকে র্অনৈতিক সুবিধার বিনিময়ে নতুনভাবে আরো একটি করে শস্য ঋণ দেন ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাত। আঞ্চলিক কার্যালয় পরিচালিত অডিটে বিষয়টি সামনে আসলে ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাত বিষয়টি ধামাচাপা দিতে অস্হায়ী মাঠ সহকারী আজির আলীর একটি টাকা আটকিয়ে উক্ত ঋন দুটি পরিশোধ করেন।
এছাড়াও ঋন পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে উৎকোচ গ্রহন করার মত অভিযোগও উঠেছে বর্তমান ম্যানেজারের বিরুদ্ধে। মনোহরপুর গ্রামের জাকির হোসেনের কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান না থাকলেও ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাত তাকে তিন লক্ষ টাকার এসএমই ঋন দেওয়ার কথা বলে দুই মাস আগে খরচ বাবদ ত্রিশ হাজার টাকা নেন । এ বিষয়ে জাকির আলীর সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। আঞ্চলিক কার্যালয় পরিচালিত অডিট চলাকালীন সময়ে গ্রাহকদের হয়রানি করা এবং মিথ্যা তথ্য সরবারহ করে গ্রাহকদের নিকট হতে অসংখ্য সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে তার অধঃস্তন অফিসারকে ফাসানোর মত অভিযোগ উঠেছে।
মনোহরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেন তার গৃহীত ঋনটি তিনি পরিশোধ করলেও ব্যবস্থাপক তাকে দফায় দফায় অফিসে ডেকে উল্টাপাল্টা কথা বলেন এবং একটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন। ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাতের বিরুদ্ধে তার চেম্বারকে বিএনপি-যুবদলের পার্টি অফিস হিসেবে ব্যবহার করার মত গুরুতর অভিযোগ উঠেছে।তিনি কালীগঞ্জের মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজে পড়াকালীন ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। কালীগঞ্জ শাখায় যোগদানের পরপরই তার অফিসে বিএনপি-যুবদলের নেতা-কর্মীদের আনাগোনা শুরু হয়। তার কক্ষে বসে তিনি এসব নেতা-কর্মীদের সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা আড্ডা দেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা জানান- ব্যবস্থাপকের চেম্বারকে এখন আর ব্যাংকের অংশ বলে মনে হয়না। মনে হয় যেন বিএনপি’র পার্টি অফিস। ম্যানেজার নাজমুস সাদাত লোভী মানুষ। ব্যাংককে নিজের সম্পত্তি মনে করে যা খুশি তাই করছেন ম্যানেজার।শুধুমাত্র বিএনপি করার কারনে কতিপয় প্রতিষ্ঠানকে তিনি বিধিবহির্ভূতভাবে ঋন সুবিধা দিয়েছেন বলে জানা যায়। যুবদল নেতা রানা আহমেদ এর প্রতিষ্ঠান মেসার্স আছিয়া এন্টারপ্রাইজ এর নামে কৃষি ব্যাংকে একটি মেয়াদোত্তীর্ণ সিসি ঋন থাকলেও ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাত শুধুমাত্র যুবদল করার কারনে তার শাখা থেকে উক্ত প্রতিষ্ঠানের নামে তিন লক্ষ টাকার একটি এসএমই ঋন দেন।
অভিযোগের বিষয়ে শাখা ব্যবস্থাপক নাজমুস সাদাতের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,আমার বিরুদ্ধে দেওয়া তথ্যগুলো সঠিক নয়,মিথ্যা ভিক্তিহীন।আমার মান-সম্মান নষ্ট করার জন্য ব্যাংকের কতিপয় কু-চক্রিমহল সাংবাদিকদের নিকট ভুল তথ্য দিয়ে আমাকে অযথা হয়রানি করার চেষ্টা করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2020 DainikBangladesh71Sangbad
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )